ভোলায় অন্ধকারে আলো জ্বালিয়ে বিপ্লবি প্রতিবাদ

0
78

টিপু সুরতানঃ
ভোলায় শিক্ষা ও উন্নয়নের দিক থেকে অবহেলিত অন্ধকারে ঘেরা এলাকার নাম ডোম পট্ট্রি। বেসিরভাগ বরাদ্ধ ভাউচারে খরচ হয়ে যাওয়া এলজিএসপি’র টাকা দিয়ে ওই এলাকার
গুচ্ছগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চার শতাধিক শিক্ষার্থীকে স্কুল ব্যাগ ও টিফিন বক্স দিয়ে অনান্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন ভোলার তরুণ ইউপি চেয়ারম্যানদের আইকন ইয়ানুর রহমান বিপ্লব মোল্লাহ।
প্রাথমিকে শিশুদের ঝরে পড়া রোধে ও স্কুলে যাওয়া উৎসাহিত করতে ভোলার সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের এই সাহসি আয়োজন।
শিশু বান্ধব বাজেটের আলোকে এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের আওতায় বুধবার বেলা ১১টার দিকে শিশু শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ৪২৪ জন শিক্ষার্থীকে এ শিক্ষা উপক্রন দেয়া হয়।
ভোলার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের মাঝে এসব বিতরণ করেন। জেলা আওয়ামীলীগের সংঘঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, ভোলার স্থানীয় সরকার শাখার উপ-পরিচালক মো. মাহমুদুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. কামাল হোসেন, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইউনুছ, পশ্চিম বাপ্তা স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. রফিকুল ইসলাম, জেলা সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. কামরুজ্জামান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মো. সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এবিএম খলিলুর রহমান, বাপ্তা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইয়ানুর রহমান বিপ্লবসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিবাবকবৃন্দ।

এ সময় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক বলেন, এলজিএসপি’র বরাদ্দ দিয়ে বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানগন তাদের সুনামের জন্য রাস্তা-ঘাট নির্মাণ করেন। কিন্তু বাপ্তা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কমলমতি শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা স্কুল ব্যাগ ও টিফিন বক্স বিতরণ করে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। তার এই উদ্যোগটি সত্যিই প্রসংশার দাবীদার।

বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ভোলার ঐতিহ্যবাহী বাংলাবাজার ফাতেমা খানম কলেজের গভর্নিবডির সভাপতি মইনুল হোসেন বিপ্লব বলেন, ভোলার শিক্ষা ব্যাবস্থাকে জননেতা তোফায়েল আহমেদ একটি মেগা প্রকল্পের আওতায় নিয়ে যাচ্ছেন, আগামিতে ভোলার কোন শিক্ষা প্রতিষ্টানে ছাত্র ছাত্রীদের যায়গা দিতে কোন সমস্যা হবেনা। কারণ প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই সাবেক সফল বানিজ্য মন্ত্রী নতুন ভবন নির্মান করেছেন এবং বাকি গুলোও করে দিবেন। এছাড়া আমাদের শিক্ষাবান্ধব মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আগামী জানুয়ারি মাসের বই উৎসবে প্রত্যেক শিক্ষার্থী যাতে ২সেট জামা কিনতে পারেন তার একটি পরিকল্পনাও করেছেন।

এ ব্যাপারে ইয়ানুর রহমান বিপ্রব মোল্লাহ বলেন, ভোলার সকল উন্নয়নের রুপকার, বাংলার অসহায় মানুষের আত্নার আত্নীয়,লুটেরাদের জমদুত জননেতা তোফায়েল আহমেদের আগামীর স্বপ্নের ভোলা বিনির্মানে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। আর আলোহীন এই ঝরে পরা শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয় মুখী করতেই আমাদের এই আয়োজন।