ভোলায় চাঁদার জন্য দিগম্বর করে মধ্যযুগীয় বর্বরতা

0
327

মনজু ইসলামঃ
চাঁদার দাবীতে ভোলায় মধ্যযুগীয় কায়দায় মাহিন্দ্র ড্রাইভারের সমস্ত শরীর থেতলে দিয়েছে মাহিন্দ্রের লাইনম্যান সবুজ। ভোলার বীরশ্রেষ্ট মোস্তফা কামাল বাসস্টান্ডে আজ সকালে এই লোমহর্ষক চাঁদাবাজির ঘটনা ঘটে।
ভোলা বাসস্টান্ডে আজ ৩০ জুন সকাল ৭টার দিকে ইলিশার মাহিন্দ্র ড্রাইভার মোঃ আলাউদ্দিন ইলিশা ঘাট থেকে লঞ্চের যাত্রী নিয়ে বাসস্টান্ডে নামিয়ে ফেরার পথে আলাউদ্দিনকে আটকিয়ে চাঁদা দাবি করলে চাঁদার টাকা না দেয়ায় প্রকাশ্যে ন্যংটা করে মার পিট করতে থাকে। এসময় অন্য মাহিন্দ্র ড্রাইভাররা তাকে বাচাতে এগিয়ে আসলে সবুজ বাসস্টান্ড এর টর্চার সেলে আলাউদ্দিনকে নিয়ে সমস্ত শরীরে কলম ডুকিয়ে রক্তাক্ত যখম করে। পরে রিক্সার ড্রাইভার ও পথচারিরা তাকে উদ্ধার করে নিরাপদে ইলিশায় পৌঁছে দেন।

মাহিন্দ্র ড্রাইভার আলাউদ্দিন বলেন, নিয়মিত সবুজকে চাঁদা দিতে হয় আমাদের। ইব্রাহিম পুলিশের ভয় দেখিয়ে আমাদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে থাকে। সকাল বেলা আমার কাছে খুচড়া টাকা না থাকায় আমাকে আটকিয়ে সবুজ ও তার ক্যাডাররা আমার সমস্ত শরিরে কলমের দাড়ালো মাথা ডুকিয়ে রক্তাক্ত করে। এসময় আমার কাছে থাকা ২২ শ টাকা ওই সন্ত্রাসীরা নিয়ে যায়। আমাকে পথচারিরা উদ্ধার করে শহরে নিয়ে আসে।
স্থানীয়রা জানান, সবুজের পরিবারের অত্যাচারে বাসস্টান্ডের ব্যাবসায়ীরা অতিষ্ট। তার পরিবার এই স্টান্ডর সকল অবৈধ কর্মকান্ডের সাথে জড়িত। এর আগে সবুজের বড় ভাই ইব্রাহিম ইয়াবার বড় চালানসহ পুলিশের হাতে ধরা পরে। এর পর কিছুদিন তাদের চাঁদাবাজির কর্মকান্ড বন্ধ থাকলেও এখন আবার তা পুরোদমে শুরু হয়েছে।
আজকের চাঁদাবাজির ঘটনায় আলাউদ্দিন ভোলা সদর মডেল থানায় অভিযোগ করেছে।