ভোলার এসপি মোকতার হোসেন আউট কায়সার ইন

0
533

মনজু ইসলামঃ
তিন বছর পর ভোলা ছাড়ছেন মানবতাবাদি পুলিশ সুপার মোকতার হোসেন পিপিএম। তার জায়গায় নতুন পুলিশ সুপার হিসেবে ভোলায় আসছেন পুলিশের এন্ট্রি টেরোরিজম ইউনিটের পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার। মোকতার হোসেনের বদলিতে ভোলার ছাত্র অভিবাবকরা হতাশা প্রকাশ করলেও, নূতন পুলিশ সুপার তার ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখবেন বলেও প্রত্যাশা করেছেন অনেকেই। মোকতার হোসেনের বদলির খবরে দীর্ঘদিন ভোলার বাহিরে পালিয়ে থাকা মাদক ব্যাবসায়ীরা প্রথমে আনন্দ প্রকাশ করলেও পুলিশের এন্ট্রি টেরোরিজম ইউনিটের সফল পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার এর আগমনের খবরে মাদক ডনদের আনন্দ বেশিক্ষন স্থায়ী হয়নি।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের পুলিশ-১ অধিশাখার উপসচিব মোহাম্মদ হোসেন স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে তাকে ভোলার পুলিশ সুপার হিসেবে বদলি করা হয়।
উক্ত প্রজ্ঞাপনে ভোলার পুলিশ সুপার মো. মোকতার হোসেনকে বরিশাল মহানগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার করা হয়েছে। 

সরকার মোহাম্মদ কায়সার পুলিশের এন্ট্রি টেরোরিজম ইউনিটের পুলিশ সুপার হিসেবে দীর্ঘ দিন ধরে অত্যন্ত সুনামের সাথে দায়িত্বপালন করে আসছিলেন। এর আগে তিনি ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে পুলিশ সুপার পদে পদন্নতি পান। তার বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা উপজেলার বাটাজোর গ্রামে।
অপরদিকে পুলিশ সুপার মো. মোকতার হোসেন পিপিএম (সেবা) ২০১৬ সালের ১৪ জুলাই ভোলায় যোগদান করেন। তিনি সুনাম ও সাহসিকতার সাথে ভোলা জেলায় দুই বছর ১১ মাস ভোলাবাসীকে সেবা দিয়ে গেছেন। সেই সাথে ভোলা থেকে মাদক নির্মূলে তিনি ছিলেন জিরো টলারেন্সে। এসপি মোকতার ভোলা জেলায় পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে মাদক, নারী নির্যাতন, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধসহ অপরাধ দমনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখায় সরকারের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম) পাওয়ার গৌরব অর্জন করেন। তার বদলিতে ভোলার অভিবাবকরা হতাশা প্রকাশ করে বলেন, নূতন পুলিশ সুপার যেন মোকতার হোসেনের মত মাধকের বিরুদ্ধে ঘোষনা করা জেহাদ অব্যহত রাখেন। তার সাথে সাথে মোকতার হোসেনের ভোলায় যোগদানের পর থেকে মানবতার কল্যানে করা কাজ গুলো নূতন এসপি অব্যাহত রাখেন বলেও আশাবাদ ব্যাক্ত করেছেন জেলার সচেতন মহল।