ভোলায় শিক্ষকদের ৪% কর্তন বাতিল ও জাতীয়করণের দাবীতে স্মারকলিপি

0
104

ইংরোজ টিমন ॥
শিক্ষকদের অবসর বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টে অতিরিক্ত ৪% কর্তনের প্রজ্ঞাপন বাতিলের নির্দেশ এবং শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণের ঘোষণার দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারী ফোরাম ভোলা জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারী) ভোলার জেলা প্রশাসক মোঃ মাসুদ আলম ছিদ্দিক এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর এই স্মারকলিপি পেশ করা হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারী ফোরাম ভোলা জেলা শাখার সভাপতি মোঃ আবু তাহের, হসভাপতি মোঃ হুমায়ুন কবির কামাল, নাহানুর বেগম, অধ্যক্ষ মোঃ রুহুল আমিন, সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ মোঃ রফিকুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক মোঃ মেহেদী হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ফজলুর রহমান রিপন, সহ-সম্পাদক মোঃ আবদুর রহমান বাবলু, মোঃ রিয়াজ উদ্দিন, আবি আবদুল্লাহ, আবদুল্লাহ আল নোমান প্রমুখ।
স্মারকলিপিতে তারা বলেন, বর্তমান সরকারের বিগত দশ বছরে শিক্ষা ক্ষেত্রে অভাবনীয় সাফল্য অর্জন হয়েছে। কিন্তু আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় সরকারের অলক্ষ্যেই বেসরকারি শিক্ষকগণ ব্যাপক বঞ্চনা বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। বঞ্চিত বেসরকারী শিক্ষক কর্মচারীদের সামান্য বেতন হতে, অবসর ও কল্যাণ ট্রাস্টে সুবিধা বর্ধিত না করে ৪% কর্তনের প্রজ্ঞাপন জারিতে ৫ লক্ষাধিক শিক্ষক কর্মচারীরা হতবাক ও ক্ষুব্ধ হয়েছে। আমলাদের ৪% কর্তনের প্রজ্ঞাপন সরকারের শিক্ষাক্ষেত্রে অর্জিত সাফল্য ও উজ্জল ভাবমুর্তিকে বিতর্কিত করার অপচেষ্টা বলে মনে করেন শিক্ষক সমাজ।
তারা বলেন, সরকারি এবং বেসরকারি শিক্ষকদের দায়িত্ব কর্তব্য বিধিবিধান একই হওয়া সত্ত্বেও বিশাল বৈষম্যের শিকার এমপিওভুক্ত শিক্ষক কর্মচারীরা। জাতি গঠনের কারিগর শিক্ষকদের যথার্থ সম্মান, মর্যাদা ও আকর্ষণীয় বেতন ভাতা প্রদানের মাধ্যমে মেধাবীদের শিক্ষকতায় আকৃষ্ট করা প্রয়োজন। প্রযুক্তিনির্ভর, আধুনিক ও যুযোপযোগী শিক্ষার মানোন্নয়ন কেবল মাত্র শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণের মাধ্যমেই সম্ভব হবে। বছরের শুরুতেই বঞ্চিত শিক্ষকদের বেতন হতে অতিরিক্ত ৪% কর্তনের আদেশ শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশকে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করছে। শিক্ষকদের বেতনের ৪% কর্তনের প্রজ্ঞাপনটি বাতিলের নির্দেশ এবং শিক্ষার মানোন্নয়নে শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণের ঘোষণার দাবী জানান শিক্ষকরা।