ভোলার আ.লীগের ভোটের রাজনীতির টনিক অফ হিরো : মেয়র মনির,

0
556

আল-আমিন এম তাওহীদ, ভোলানিউজ.কম,

ভোলার আওয়ামী লীগের দুর্দিনের রাজপথের কান্ডারী এবং আওয়ামী ভোটের রাজনীতির টনিক অফ হিরো পৌরসভার ২বারের নির্বাচিত মেয়র ও জেলা যুবলীগের সভাপতি মনিরুজ্জামান মনির।

সম্প্রতি সময়ের ভোটের রাজনীতির মাঠে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে রাজপথে নৌকার প্রচার-প্রচারনায় দেখা যায় মেয়র মনিরকে। ১ম বারে ভোলা পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে মানুষের ভালবাসা আস্থা কুড়াতে সক্ষম হয়েছেন। দলমত নির্বিশেষে যাকে মানুষ আপন হিসেবে দেখেন তিনিই ভোলার জনপ্রিয় টনিক অফ হিরো মনির। তবে সবার কাছে পরিচিত মনির নামে। যখনি আওয়ামীলীগের দুর্দিন চলে আসে তখনই রাজপথে ব্যস্ত সময় পাড় করেন মনির।

মেয়র মনির ভোলার বর্তমান আওয়ামী রাজনীতির মাঠে ইতিমধ্যে নৌকার পক্ষে গণজোয়াড়ে পরিনত করেছেন। প্রতিদিন অক্লান্ত পরিশ্রম করছে ভোলার আওয়ামী রাজনীতির ভোটের মাঠে । উঠান বৈঠক, গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। আ.লীগ, যুবলীগ,ছাত্রলীগসহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষ সাথে নিয়ে ভোলার নৌকার ভোটের মাঠে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন। মেয়র মনির ভোটের মাঠে থাকায় নৌকার সারাও বাড়ছে ব্যাপক। ৩০তারিখ নির্বাচনে নৌকার জয় ছিনিয়ে আনতে মেয়র মনিরই পারবেন, এমন কথা এখানকার ভোটারদের।

প্রথম মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর বর্তমান বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের নির্দেশে ভোলা পৌরসভাকে তিনি ফুলে ফুলে সাজাঁতে থাকেন। এরপর থেকেই ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেন। ২য় বারে মেয়র নির্বাচিত হন বিপুল ভোটে। গত পৌর নির্বাচনে মাঠে হ্যাভীওয়েট প্রার্থী থাকলেও মেয়র মনিরের ভালবাসায় নৌকার গণজোয়ারে পরিনত পৌর নির্বাচনটি।

তিনি নিরলস পরিশ্রমের মাধ্যমে জণগনের আস্থা আর ভোলা পৌরসভাকে আধুনিক শহরে পরিনত করতে সক্ষম হয়েছেন। একারনেই আজ ভোলাবাসির কাছে মেয়র মিনর নামে পরিচিত । ভোলার মানুষ আপন চোখে যাকেই ভাবছেন তিনিই মেয়র মনির। কোন টাকা আর কিছুর বিনিময় নয়, যখনি ডাক দেন তখনি রাজপথে হাজার হাজার মানুষের সারা পায় তিনিই ভোলার মনির।

ভোলার সাধারণ মানুষের ভাষ্য অনুপাতে, মেয়র মনির যার পক্ষে থাকেন এবং যাকে ভোট দিতে বলবেন তাকেই ভোট দিবো। মেয়র মনিরের মতো যে শহর সাজাঁতে পারবে তিনিই এখানের অভিবাবক।

দলীয় রাজনীতির অবস্থান, ১৯৯৬ এ রাজপথের সাহসী নেতা হিসেবে পরিচিত। ২০০১ সালে ভোলার আ.লীগের দুর্দিনের কান্ডারী হিসেবে পরিচিত লাভ। ২০০৪ সালে বিএনপি জামায়াতের আতংক হিসেবে পরিচিত। এরমাঝে রয়েছে বিএনপি সরকারের দায়ের করা অসংখ্য মামলা, রেহাই পায়নি হত্যা মামলা খেকেও। শেষমেষ এলাকা ছেড়েও পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছিলেন এ জনপ্রিয় নেতা। শত চেষ্টা করেও বিএনপি মেয়র মনিরের ভালবাসা আর কাছ থেকে সরাতে পারেনি ভোলার মানুষকে । সেই ভালবাসায় ৩০ডিসেম্বর ভোলায় নৌকার গণজোয়ারে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে এমনটা্ি আশা ভোলাবাসির।

মেয়র মনিরের উন্নয়ন, স্কুল মাঠ, ফোয়ারা, ইলিশ ফোয়ারা, জেলা পরিষদ পুকুর, আধুনিক পৌরসভা, শহিদ মিনার, রাস্তাঘাট, হাতির ঝিল ব্রিজ, আধুনিক ড্রেন নির্মান, হ্যালিপেড মাঠসহ অসংখ্য উন্নয়নের ছোঁয়া ভোলা পৌরসভাটি।মানুষের সাহায্য, বিপদের বন্ধু, পৌরপিতা, দলের ত্যাগী নেতা মেয়র মনির। এখানকার সাধারণ মানুষের ভাবনা যেভাবে পৌরসভার উন্নয়ন হয়েছে তাতে সিটি কর্পোরেশন ঘোষনা করতে পারেন।

পর্ব-১

(আল-আমিন এম তাওহীদ, ১৯ডিসেম্বর-২০১৮ইং)