ভোলায় রাতে দোকানের টিন কেটে ইয়াবা, সকালে ৯ম শ্রেণীর ছাত্র আটক!

0
559

জসিম রানা,ভোলানিউজ.কম,

ভোলায় আনুমানিক মধ্য রাতে পেট্রোল মবিল ও  তেলের দোকানের বেড়া কেটে ইয়াবা লুকিয়ে রাখার অভিযোগে ব্যবসায়ী ইব্রাহিমের ছেলে ভোলা শহরের আব্দুর রব স্কুল এন্ড কলেজে ৯ম শ্রেণীর ছাত্র নিয়াজকে থানা পুলিশ আটক করে জেলে পাঠায় জেল হাজতে পাঠায়।

আটকৃকত নিয়াজের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, ভোলা পৌর কাঠালী ৮নং ওয়ার্ডের মোঃ রফিকুল ইসলামের ছেলে মোঃ ইব্রাহীম মোস্তফা কামাল বাসটার্মিনাল সংলগ্ন বিশ্ব রোডের মাথায় দীর্ঘদিন যাবৎ সততার সাথে তেলের দোকান করে আসছিল। গত ১৯ নভেম্বর, সোমবার মধ্য রাতে একটি কু-চক্রি মহল ওই দোকানের পেছনের বেড়া কেটে দোকানের তাকের এক কর্নারে ৬০ পিস ইয়াবা রেখে যায়। তার পরের দিন ২০ নভেম্বর সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভোলা থানার এসআই কামরুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি পুলিশের টিম এসে উল্লেখিত দোকানটি চার্জ করে দোকানের তাকের ডান কর্নারে একটি কাগজের বক্সের মধ্য থেকে ৬০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। ওই মহুর্তে এ অভিযোগে দোকান মালিক ইব্রাহীমকে না পেয়ে পুলিশ তার ছেলে ভোলা আবদুর রব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্র নিয়াজকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এবিষয়টি সম্পূর্ণ ষড়যন্ত্র মনে করে ওই মহুর্তে নিয়াজ ও দোকান মালিক ইব্রাহীমকে নির্দোষ প্রমান করার জন্য পুলিশের সামনে এলাকার কয়েকশত নারী পুরুষ হাজির হয়। এ ব্যাপারে গত ২১ নভেম্বর নিয়াজকে আসামী করে ভোলা সদর থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়। পরে গত ২২ নভেম্ববর অভিযুক্ত নিয়াজকে পুলিশ আদালতে হাজির করলে আদালত তাকে যশোর কিশোর সংশোধনী কেন্দ্রে পাঠায়।

ওই এলাকার ব্যবসায়ী আবুল হাসেম, মিনহাজ উদ্দিন ও মোক্তার হোসেনসহ অনেকে জানান, তেল দোকানদার ইব্রাহীম দীর্ঘদিন যাবৎ সততার সাথে এখানে ব্যবসা করে আসছিল, তার ছেলে ছোট নিয়াজ পড়া-লেখা করে। ইয়াবা বা গাজাঁ কাকে বলে এই পরিবার চিনেনা। তারা কোন দিনও মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ছিল না। এলাকার অথবা এলাকার বাইরের একটি কু-চক্রি মহল ইব্রহীমের ব্যবসা ধ্বংস করার জন্য মধ্য রাতে বেড়া কেটে মাদক দ্রব্য ইয়াবা রেখে যেতে পারে। এঘটনার সাথে প্রকৃত দোষীদের ‍পুলিশই গ্রেফতার করতে পারে। গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

আরো জানাগেছে, অভিযুক্ত স্কুল ছাত্র নিয়াজের নবম শ্রেনীতে ফাইনাল পরীক্ষা আগামী ২৮ নভেম্ববর শুরু হবে। এ ব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত দোষীদের আটক করে স্কুল ছাত্র নিহাজের মুক্তি দাবী করেন মোস্তফা কামাল বাসটার্মিনাল এলাকার ব্যবসায়ী সমিতি। নিয়াজের মুক্তির দাবীতে মানববন্ধনসহ বড় ধরণের কর্মসূচীর প্রস্তুতি নিচ্ছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

এব্যাপারে ভোলা থানার আফিসার ইন-চার্জ (ওসি) ছগির আহাম্মদ জানান, তদন্ত সাপেক্ষে আসামীর ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

(আল-আমিন এম তাওহীদ, ২৬নভেম্ববর-২০১৮ইং)