ভোলায় সুজনের আয়োজনে নির্বাচনী অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত,

0
36

আল-আমিন এম তাওহীদ, ভোলানিউজ.কম,

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোটারদের মাঝে সচেতনা সৃষ্টি এবং নাগরিক চেতনাবোধে উদ্বুদ্ধ তরুনরাই গণতান্ত্রিক ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার ভবিষ্যৎ কারিগর নির্বাচনী অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার ( ২নভেম্ববর) সকাল ৯টায় ভোলা সরকারি শেখ ফজিলাতুন্নেছা মহিলা কলেজের হলরুমে ‘‘সুজন’’ সুশাসনের জন্য নাগরিক এর আয়োজনে এ নির্বাচনী অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা সুজনের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নাছির লিটনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ‘‘সুজন’’ কেন্দ্রীয় কমিটির সমন্বয়কারী দীলিপ সরকার, বিশেষ অতিথি ভোলা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর পারভীন আখতার, প্রবীণ সাংবাদিক মোঃ অমর ফারুখ, জেলা দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোবাশ্বের উল্লাহ চৌধুরী, সাংবাদিক অমিতাব রায় অপু, শিমুল চৌধুরী, এইচআরডিএফ এর মোঃ হোসেন, এ্যাডভোকেট জান্নাতুল ফেরদাউসী জুবলী, শিক্ষক জিন্নাহ রেহানা প্রমূখ।

এদিকে, সকাল ৯টায় জেলার বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থী এবং তরুণ সমাজ নিয়ে নির্বাচনী অলিম্পিয়াড পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করে ভোলা সরকারি কলেজ শিক্ষার্থী, সরকারি শেখ ফজিলাতুনন্নেছা মহিলা কলেজ, দক্ষিণবঙ্গ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট, ওবাইদুল হক মহাবিদ্যালয়সহ তরুণ সমাজ ও যুবসমাজ। পরিক্ষা শেষে বিজয়ীদের হাতে পুরুস্কার তুলে দেয়া হয়।
এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে দীলিপ সরকার বলেন, কোন প্রার্থী কি এবং কাকে ভোট দিবেন?। সৎ চরিত্রের অধিকারী, জনকল্যানে নিবেদিত, জনপ্রতিনিধি হওয়ার মত যোগ্যতা ও দক্ষতা সম্পন্ন। যারা অসৎ দূর্ণীতিবাজ, অযোগ্য প্রার্থীদের ভোট দেয়া যাবেনা।

এতে অন্যন্যাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সাংবাদিক মনির, সাংবাদিক আদিল হোসেন তপু, এ্যাডভোকেট জান্নাতুল ফেরদাউসী,এইচআরডিএফ এর মোঃ হোসেন, সাংবাদিক শিমুল চৌধুরী, সাংবাদিক অমিতাব রায় অপু, জেলা দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোবাশ্বের উল্লাহ চৌধুরী, প্রবীণ সাংবাদিক মোঃ অমর ফারুখ, ভোলা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর পারভীন আখতার।

সুজন এর অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠানে তরুণরা প্রশ্ন তুলে ধরেন , আগামি জাতীয় একাদশ নির্বাচনে সংসদীয় আসনে তরুণদের ভুমিকা কতটুকু? এবং তাদের কত আসন থাকবে যেহেতু ডিজিটাল বাংলাদেশে তরুনদের বিকল্প নেই, বিগত দিনে তরুণদের দায়িত্ব দেয়া হয়নি এবছরও কি তা হবে?। দেশের প্রধানমন্ত্রীরা শুধুই দূর্নীতিমুক্ত দেশ গড়ার কথা বলেন কিন্তু কেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা তাদের নিজ নির্বাচনী এলাকা দূর্ণীতি মুক্ত করার কথা বলেন না? এসকল দুর্ণীতিবাজ জনপ্রতিনিধিরা কি আবারো মনোনয়ন কিংবা নির্বাচন করতে পারবে? এক্ষেত্রে সামনে সুজনের ভুমিকা কতটুকু থাকবে? এমন প্রশ্ন তুলে ধরেন সুজন এর কাছে আল-আমিন এম তাওহীদ এবং ভোলার তরুণ সমাজ।

(আল-আমিন এম তাওহীদ, ২নভেম্ববর-২০১৮ইং)