স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরও মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পায়নি কাদের,

0
58

চরফ্যাশন প্রতিনিধি,

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার শশীভুষণ থানার রসুলপুর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের বীর মুক্তিযোদ্ধা সুবেদার সৈয়দ মোহাম্মদ আবদুল কাদের বিদ্যুৎ কমান্ডার স্বাধীনতার ৪৭ বছর পেরিয়ে গেলেও স্বীকৃতি পাননি তিনি।কোন সুবিদাধি না পাওয়ায় মানবেতর জীবন যাপন করছেন ৭৫ বছর বয়সী এ মুক্তিযোদ্ধা।

১৯৭১ সালে তিনি ইপিআর ( ইষ্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট) এ চাকুরীরত অবস্থায় কুমিল্লা ১৮ নং রেজিমেন্টের ২০ জন পাকিস্থানী অফিসারকে হত্যা করে ৩২০ জন বাঙ্গালী ভারতে গিয়ে তালিকা ভুক্ত হয়ে বাংলাদেশের ৯ নং সেক্টরের অধীনে ৮ নং তালিকায় কমান্ডার হিসেবে ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার নীল কমল, নুরাবাদ, আমিনাবাদ, বোরহানউদ্দিনের কালীগঞ্জে সরাসরি তার নের্তৃত্বে যুদ্ধ পরিচালিত করে পাক হানাদার বাহিনী হত্যা ও মুক্ত করে চরফ্যাশনে সর্ব প্রথম জাতীয় পতাকা ১৬ ডিসেম্বর উত্তোলন করার দাবী করেন তিনি।

পরে তিনি বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড এ পুনরায় যোগদান করে সেখানে তার সনদ জমা দেন। অবসরে ফিরে আসার সময় তৎকালীন বিজিবি প্রধান মৃত (পিলখানা ট্র্যাজেডিতে নিহত ) মেজর সাকিল আহম্মেদ সনদ ফিরিয়ে না দেওয়ার কারনে তিনি কোথাও নাম গেজেট ভুক্ত করতে পারেননি বলে আরও জানান । অথচ ইউনিয়ন ওয়ার্ড কমিটির তালিকায় তাকে মুক্তিযোদ্বা বিষয়ক সম্পাদক পদে রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল কালাম আজাদের সাথে আলাপ করলে তিনি জানান ভারতের গেজেটে নাম থাকলে কোন মুক্তিযোদ্ধা অবহেলিত থাকবে না।

(আল-আমিন এম তাওহীদ, ২৫সেপ্টেম্ববর-২০১৮ইং)