আমি এখন কিছু বলবো না, কাজ করার পর নগরবাসি বলবে- সেরনিয়াবাত সাদিক

0
155

অনলাইন ডেস্ক: ভোলানিউজ.কম,

গতকাল সোমবার ৩০জুলাই সকাল ৮টা থেকে বিসিসিতে ভোটগ্রহণ শুরু হয় আর শেষ হয় বিকেল ৪টায়। বরিশাল সিটিতে মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ২.৪২.১৬৬, এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১.২১. ৪০৩৬,নারী ভোটার ১.২০.৭৩০জন। মোট ভোট কেন্দ্র ছিল ১২৩টি। এর মধ্যে ১৫টি স্থগিত করা হয়েছে। প্রাপ্ত কেন্দ্র ১০৭টি। কাউন্সিলর পদে ৯৪জন, সংরক্ষিত মহিলা আসনে ৩৫জন প্রার্থী ছিল। এরমধ্যে বিনা প্রতিদন্ধিতায় মহিলা সংরক্ষিত আসনে একজন বিজয়ী হন।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতিকের প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ ১.৭.৩৫৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে মেযর পদে নির্বাচিত হন। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল থেকে ধানের শীষের মনোনীত প্রার্থী এ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার ১৩.১৩৫ ভোট পেয়েছেন।

এদিকে, বিসিসির নির্বাচনে নৌকা প্রতিকে বিপুল ভোটে বিজয়ী সেরনিবাত সাদিক আব্দুল্লাহ আজ রাত ১২টার পরে নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আমার এ বিজয় নগরবাসির।মানুষের অশেষ ভালবাসা থাকার কারনে আমি বিপুল ভোটে জয়লাভ করতে পেরেছি। নগরের প্রতিটি ভোটার আমাকে ভোট দিয়েছে। তাদের ভালবাসা পেযেই আজ আমি মেয়র নির্বাচিত হতে পেরেছি। আমি নগর পিতা নয়, আমি একজন সাধারণ মানুষ। সবার সাথে মিলেমিশে কাজ করে যাবো। বর্তমান সরকার মাদার অফ হিউম্যানিটি জননেত্রী শেখ হাসিনার যেভাবে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন এবং দেশে আজ উন্নয়নে ভরপুর। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে তাকিয়ে দেখুন উন্নয়ন চোখের সামনে ভাসে।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের মানুষকে নিয়ে চিন্তা করে। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মানুষের ভোটে আমি জয়লাভ করেছি এজন্য চির কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি এবং আমার নেত্রী বঙ্গবন্ধুর কন্যা উন্নয়নের কারিগড় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকেও অভিনন্দন জানাচ্ছি তার সু-দৃষ্টি থাকার কারনেই আজ সফলতা নিয়ে এগিয়ে যেতে পেরেছি।

এসময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সাদিক আব্দুল্লাহ বলেন, আমি কি উন্নয়ন করবো আগে বলবো না। মিথ্যা ছিত্তা ভুয়া কথা আমি বলবো না।যখন নগরবাসির জন্য কিছু করবো তখন আপনাদের চোখে পড়বে। আগে কোন ওয়াদা দিবোনা।আমি আগে বলবো সব করবো, তারপর যদি সেই সব কাজ করতে না পারি তাহলে মানুষের অনেক গাল মন্দ শুনতে হবে। একটি সুন্দর ও শান্তিপ্রিয় নগর সাজাঁতে যা প্রয়োজন তা করবো। মাদক সন্ত্রাস, চাদাঁবাজ আগে দমন করবো। এরপর নগরের পানি সমস্যা্ সমাধান দ্রুত করা, পরিস্কার পরিছন্ন একটি নগর গড়ে তোলা, রাস্তাঘাটের নিয়ম শৃংঙ্খলা বজায় রেখে যানবাহনের চলাচল এবং সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার বিষয়গুলো গড়ে তোলা। মযলা আবর্জনা ও অস্বাস্থ্যকর স্থানগুলো পরিপূর্ণভাবে সাজাঁনো।

সাদিক আব্দুল্লাহ আরো বলেন, যখন বরিশালে জনসভা হয়েছিল তখন আপনারা উপস্থিত ছিলেন। আমার প্রিয় নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন বরিশাল বাসির জন্য সবকিছু করে দিবো। একথাটি মনে রাখুন আগে কিছু বলবো না। আগে মানুষের সেবা করি, মানুষই বলবে আমি কি করেছি। ওয়াদা দিবোনা কাজ করি তারপর দেখা যাবে নগরবাসির জন্য কি করেছি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলােদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির তথ্য গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট আফজাল হোসাইন, অর্থনীতিবীদ ডক্টর আশিকুর রহমান শান্ত, ব্যারিষ্টার তৌফিকুর রহমানসহ সাংবাদিকবৃন্দ।

(এমআই, ৩১জুলাই-২০১৮ই)