ভোলায় মাতৃনিলয় নাসিং হোমের বিরুদ্ধে ভুল চিকিৎসার বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

0
281

গোপাল চন্দ্র দে,ভোলানিউজ.কম,

ভোলায় মাতৃ নিলয় নাসিং হোমের বিরুদ্ধে ভুল চিকিৎসার অভিযোগ উঠেছে। প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে এর আগে ও এরকম অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আজ ৭ জুন (বৃহস্পতিবার) সকালে ভূক্তভোগী রোগী সালমার স্বামী জামাল উদ্দিন হালদার ঘটনাটির সুষ্ঠ বিচারের দাবীতে ভোলা প্রেস ক্লাবে একটি সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন,গত ২০ মে বোরহানউদ্দিনের মনিরামের বাসিন্দা জামাল উদ্দিন তার সন্তান সম্ভবা স্ত্রী সালমাকে ডেলিভারীর জন্য মাতৃনিলয় নাসিং হোমে নিয়ে আসে। যেখানে চিকিৎসক তার অবস্থা আশংকাজনক বলে সিজার করার পরামর্শ দেন এবং ২১ মে ডা: আফরোজা বেগম সিজার করেন। জন্ম নেয় এক কন্যা সন্তান। সিজার করার পরে তার স্ত্রীর আবস্থা আশংকাজনক বলে রক্ত দিতে বলে। ২ ব্যাগ রক্ত দেওয়ার পর রোগীর অবস্থার আবনতি হলে ডাক্তার রোগীকে জরুরী ভিত্তিতে বরিশাল নিতে বলেন। বরিশাল সেবাচিমে নিলে, সেখানকার ডাক্তার নাহিদা হাসান সুপার নেতুত্বে ৪ সদস্যর বোর্ড রোগীর রোগ পরীক্ষা করে পুনরায় অপারেশন করলে রোগীর পেট থেকে ৪ ট্রে জমাট বাধা রক্ত বের করেন এবং রোগীর জরায়ুতে একটি রগ কাটা অবস্থায় দেখতে পান। সেখানকার চিকিৎসকরা জানান, সিজার করার সময় ভোলার ডা: আফরোজা বেগমের ভুল চিকিৎসার করনে এ ঘটনা ঘটেছে।

তিনি বলেন আমার স্ত্রীর ভুল চিকিৎসা করেছে মাতৃনিলয় নাসিং হোম কতৃপক্ষ ও ডা: আফরোজা বেগম। তাদের ভুল চিকিৎসার কারনে আমার স্ত্রী মৃত্যুর মুখে চলে গিয়েছিলো ১৭ দিন শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর এখন সে মোটামুটি সুস্থ। তার চিকিৎসায় আমার প্রায় ১লক্ষ ৭০ হাজার টাকা খরচ হয়েছ। যেহেতু মাতৃনিলয় নাসিং হোমের ভুল চিকিৎসার কারনে আমার স্ত্রীর এ অবস্থা হয়েছে সেহেতু এ দায় তাদেরকেই বহন করতে হবে। আমার স্ত্রীর মতো ভবিষ্যতে আর কোন রোগী যেন ভুল চিকিৎসার শিকার না হয় তাই আমি তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

(আল-আমিন এম তাওহীদ, ৭জুন-২০১৮ইং)