ভোলার প্রানহীন শিল্পকলায় প্রানের আলো বাঁধন,

0
176

আল-আমিন এম তাওহীদ,ভোলানিউজ.কম,

ভোলায় ঝিমিয়ে শিল্পকলা একাডেমী, জনপ্রিয়তায় বাঁধন- দ্বীপ জেলায় জন্ম নিয়েও অল্প দিনেই লাভ করেছেন ব্যাপক জনপ্রিয়তা। অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন মানুষের ভালবাসা। গান যে শুধু শোনারই নয়, উপলব্ধির ও বোঝার উপকরন-এটা বুঝাতে সমর্থ হয়েছেন জেলার জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী তালহা তালুকদার বাঁধন। গানের তালে তালে উপমাগুলো হয়ে উঠতো সবার কাছে প্রিয়। তিনি ভোলা জেলার সামাজিক ও রাজনৈতিক অঙ্গনেও বিশাল ভুমিকা রেখে যাচ্ছেন।

যা দ্বীপ জেলা ভোলার মানুষের গর্ভ করার মত। ছোটবেলা থেকেই গানের সাথে মিশে আছে বাঁধনের হৃদয়। শুধু ভোলা জেলায় নয়, দেশের বিভিন্ন জেলায়ও সমানতালে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন এ গুনী মানুষটি।দেশের জনপ্রিয় শিল্পীদের হৃদয় জুড়ানো গান, নিজের কণ্ঠে গাইতে সক্ষম। মানুষের কাছে এমনটাই মনে হচ্ছে সেই জনপ্রিয় শিল্পীদের চাইতে ভালো গান পরিবেশন করছেন তাদের বাঁধন। তবে তার সবচেয়ে বড় পরিচয় তিনি একজন জনপ্রিয় উপস্থাপক । শুধু গান,কণ্ঠ আর উপস্থাপক দিয়েই শেষ নয়, নাটক, অভিনয় করেও কেড়েঁছে মানুষের হৃদয়। ভোলার সাংস্কৃতিক অঙ্গনে তালহা তালুকদার বাঁধনের বিকল্প নেই। যেমন রয়েছে তার কণ্ঠ,অভিনয়, হাস্যজ্বল কথাবার্তা, তেমন রয়েছে সবার কাছে প্রিয় একটি মায়াময়ী আবেদন। ভোলার এ জনপ্রিয় শিল্পী মাত্র অল্প দিনেই ভোলার মানুষের কাছে স্বীকৃতি পায় তার প্রিয় গানের। বাংলা এবং হিন্দি ভাষায় সংগীত পরিবেশন করেও ভোলার মানুষের কাছে নিজের আসন পোক্ত করেন। তার সংগীত অবদানে রয়েছে সম্মাননা স্মারকসহ অসংখ্য পুরুস্কার। চ্যানেল (এটিএনবাংলা) এর বরিশাল বিভাগের আঞ্চলিক পর্যায়ের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহনের মধ্য দিয়ে বিশাল ভুমিকা অর্জন করেছেন।

এদিকে, ভোলা জেলার শিল্পকলা একাডেমীর বিশাল ভবন থাকা সত্বে তেমন একটা জমজমাট দেখা যাচ্ছেনা। শিল্পকলার উদ্যোগে সাধারণ মানুষের মাঝে আনন্দ উৎসব দেয়া মতো সেই ব্যবস্থা নেই। ডিমে তালে দিন কেটে যাচ্ছে অনির্বাচিত কমিটির জেলা শিল্পকলা একাডেমীর। যেকোন সামাজিক অনুষ্ঠানে নিরবতা পালন করছেন শিল্পকলা, নেই কোন ভাল কণ্ঠশিল্পী, সঙ্গীত শিল্পী, সুরকার,গীতিকার,নিত্যশিল্পী। হয়তো বছরে কোন উৎসব আসলে ছোটখাটো প্রোগাম করেই শেষ হয় জেলা শিল্পকলার সকল আয়োজন। অনেকেই মনে করেন ভোলা জেলা প্রশাসনের সঠিক নজরদারি না থাকায় কোন প্রকারে ডিম তালে চলছে শিল্পকলা একাডেমী। সাধারণ মানুষ এমনটাই মনে করেন, তালহা তালুকদার বাধঁন ভোলার একমাত্র সাংস্কৃতিক অঙ্গনের নির্ভরশীল।
বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে বাধঁনের ভুমিকা অতুলনীয়। ভোলার শিল্পকলায় পুরান শিল্পীদের দিয়ে আজ চলছে সেই পুরানো সঙ্গিত, গান, নিত্য চর্চা, তবে ভোলার গৌরব হিসেবে আজও স্থান করে নিতে পারেনি তরুণ কোন সঙ্গিতশিল্পী, নৃত্যশিল্পী জেলা শিল্পকলায় আজও শোভা পায়নি ডিজিটাল বাংলাদেশের শিল্পীদের কোন ছোয়াঁ। ভোলা ও নিজেদেরকে নিয়ে গৌরব করার মতো শিল্পকলা একাডেমী থেকে শিল্পীরা বর্তমানে তেমন কোন সাপোর্ট পাচ্ছেন না। অথচ এই দ্বীপ জেলা ভোলায় জন্ম নিয়েছেন বাংলাদেশে অনেক জ্ঞাণী গুণী ব্যক্তিবর্গ থেকে শুরু করে রাজনৈতিক ও সামাজিক অঙ্গনের বড় বড় দায়িত্বশীলরা। শিল্প চর্চার এতো সমস্যার মধ্যেও তালহা তালুকদার বাঁধনদের মত গুনীরা আছে বলেই এখনো উপলোব্দি আসেনি মৃত প্রায় শিল্প কলার কথিত স্বঘোষিত সাংস্কৃতিক বাক্তিত্বদের।
(এমআই১ে৭এপ্রিল,২০১৮ইং)